ঢাকা , শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম:
শাহরাস্তিতে জাতীয় বীমা দিবস পালিত কেক কাটার মধ্য দিয়ে পাঠক প্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল “প্রিয় চাঁদপুর” এর ৮ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত শাহরাস্তির রায়শ্রী আল-আমিন হাফেজিয়া মাদ্রাসার বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল সম্পন্ন রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদকে ভূষিত হলেন ফরিদগঞ্জের শামছুন্নাহার এসএসসির প্রশ্ন ফাঁস: মনোহরগঞ্জে ২ শিক্ষক জেলে, প্রধান শিক্ষক পলাতক বদলে গেছে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষে শ্রীপুরে র‍্যালি ও আলোচনা সভা শাহরাস্তি রেল স্টেশন বাজার কমিটি নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে মো.সাইফুল ইসলাম সকলের দোয়াপ্রার্থী বিডি হিউম্যান অর্গানাইজেশন এর আইসিটি অলিম্পিয়াড বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন  শাহরাস্তিতে পিতা-মাতাকে ঘর থেকে বের করে দেয়ায় গ্রেফতার পুত্র

ফরিদগঞ্জে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকান্ড; সর্বশান্ত একটি পরিবার

রুহুল আমিন খাঁন স্বপনঃ

পুরাতন বছর শেষে মানুষ যখন নতুন বছরের নতুন স্বপ্নে বিভোর, ঠিক এই সময়ে পরিবারের আয়ের একমাত্র উৎস্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকান্ডের শিকার হয়ে সর্বশান্ত হয়েছে একটি পরিবার।

ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকার ৬ নং ওয়ার্ডের সাপুয়া গ্রামের সাদেক ভ্যারাইটিজ স্টোরে রবিবার (৩১ ডিসেম্বর) গভীর রাতে এ অগ্নীকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল প্রায় ৪০ মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় প্রায় ১০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের।

ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী সাদেকুল ইসলামের একমাত্র ছেলে মহিবুল ইসলাম রিয়াদ বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় রাত সাড়ে ১১ টার সময় দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যায়। রাতে প্রতিবেশি দিলারা বেগম’র ডাক চিৎকারে ঘুম থেকে জেগে দোকানের সামনে এসে দেখি আমার দোকানে আগুন জ্বলছে।

এ ঘটনায় আমাদের বাকির তালিকায় থাকা রেজিষ্ট্রার, দোকানে থাকা নগদ টাকা ও মালামালসহ প্রায় ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমরা বাবা ছেলে দোকানটি পরিচালনা করে জীবিকা নির্বাহ করতাম। বেচা বিক্রি ভালো হওয়াতে আত্মীয় স্বজন ও এনজিও থেকে টাকা সংগ্রহ করে পুঁজি আরো বাড়িয়েছিলাম। নতুন বছরের প্রথম দিনে এমন ঘটনায় কিভাবে পরিবার নিয়ে বেঁচে থাকবো ভেবে পাচ্ছিনা।

দিলারা বেগম জানান, রাত সোয়া তিনটা নাগাদ টিনের চালে খস খস শব্দে ও আলো দেখে ঘরের জানালা খুলে দেখি রিয়াদের দোকানে আগুন জ্বলছে।

এসময় আমার ডাকচিৎকারে আশে পাশের লোকজন এসে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।

বিষয়টি নিয়ে ফরিদগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ মো. কামরুল ইসলাম বলেন, অগ্নীকাণ্ডের খবর পেয়ে ১০ মিনিটের ভিতরে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা প্রায় ৪০ মিনিট যাবৎ চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি। তবে কিভাবে আগুণের সুত্রপাত, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

Facebook Comments Box
Tag :
About Author Information

RAFIU HASAN

শাহরাস্তিতে জাতীয় বীমা দিবস পালিত

ফরিদগঞ্জে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকান্ড; সর্বশান্ত একটি পরিবার

Update Time : ০৩:৫২:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জানুয়ারী ২০২৪

রুহুল আমিন খাঁন স্বপনঃ

পুরাতন বছর শেষে মানুষ যখন নতুন বছরের নতুন স্বপ্নে বিভোর, ঠিক এই সময়ে পরিবারের আয়ের একমাত্র উৎস্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকান্ডের শিকার হয়ে সর্বশান্ত হয়েছে একটি পরিবার।

ফরিদগঞ্জ পৌর এলাকার ৬ নং ওয়ার্ডের সাপুয়া গ্রামের সাদেক ভ্যারাইটিজ স্টোরে রবিবার (৩১ ডিসেম্বর) গভীর রাতে এ অগ্নীকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল প্রায় ৪০ মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় প্রায় ১০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের।

ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী সাদেকুল ইসলামের একমাত্র ছেলে মহিবুল ইসলাম রিয়াদ বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় রাত সাড়ে ১১ টার সময় দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যায়। রাতে প্রতিবেশি দিলারা বেগম’র ডাক চিৎকারে ঘুম থেকে জেগে দোকানের সামনে এসে দেখি আমার দোকানে আগুন জ্বলছে।

এ ঘটনায় আমাদের বাকির তালিকায় থাকা রেজিষ্ট্রার, দোকানে থাকা নগদ টাকা ও মালামালসহ প্রায় ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমরা বাবা ছেলে দোকানটি পরিচালনা করে জীবিকা নির্বাহ করতাম। বেচা বিক্রি ভালো হওয়াতে আত্মীয় স্বজন ও এনজিও থেকে টাকা সংগ্রহ করে পুঁজি আরো বাড়িয়েছিলাম। নতুন বছরের প্রথম দিনে এমন ঘটনায় কিভাবে পরিবার নিয়ে বেঁচে থাকবো ভেবে পাচ্ছিনা।

দিলারা বেগম জানান, রাত সোয়া তিনটা নাগাদ টিনের চালে খস খস শব্দে ও আলো দেখে ঘরের জানালা খুলে দেখি রিয়াদের দোকানে আগুন জ্বলছে।

এসময় আমার ডাকচিৎকারে আশে পাশের লোকজন এসে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।

বিষয়টি নিয়ে ফরিদগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ মো. কামরুল ইসলাম বলেন, অগ্নীকাণ্ডের খবর পেয়ে ১০ মিনিটের ভিতরে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা প্রায় ৪০ মিনিট যাবৎ চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি। তবে কিভাবে আগুণের সুত্রপাত, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

Facebook Comments Box