ঢাকা , শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম:
মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের নির্দেশে উয়ারুকে থামবে আইদি পরিবহন আমি ৯৬ সালের রফিকুল ইসলাম নই, আমি ২৪ সালের রফিকুল ইসলাম স্ত্রী নির্যাতনের প্রতিকার চেয়ে প্রবাসী খোরশেদ আলমের সাংবাদিক সম্মেলন শাহরাস্তিতে জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে বিএনপির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত শাহরাস্তি ক্রিকেট একাডেমীর আয়োজনে ট্যালেন্ট হান্টের পর্দা উঠলো আজ সবসময় সাধারণ মানুষের পাশে থাকবেন মৌসুমি সরকার শাহরাস্তিতে দেবরের কোদালের কোপে ভাবির মৃত্যু প্রিয় নেতাকে বিজয়ী করতে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে শরিফ খান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মৌসুমিকে বিজয়ী করতে চায় জনগণ আবদুল জলিল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হবেন বলে জানালেন সাধারণ জনতা

নৌকার সমর্থনে শাহরাস্তিতে দিনব্যাপী পথসভা

আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করার ক্ষমতা কারোই নেই

…. মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম

মহান মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর কমান্ডার, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, চাঁদপুর-৫ (শাহরাস্তি-হাজীগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম বলেছেন, বাংলাদেশ একটা গভীর সমস্যার সম্মুখীন। একটা আন্তর্জাতিক চক্রান্ত চলছে, আওয়ামী লীগকে কিভাবে নাস্তানাবুদ করা যায়। আমি ক্ষমতাচ্যুত বলবো না, আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করার ক্ষমতা কারোই নেই। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণের দল। এদেশের আপামর জনতা আওয়ামী লীগের সঙ্গে ছিল আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। কিন্তু নানা ধরনের চক্রান্ত চলছে আমাদের নানাভাবে চাপে ফেলা হচ্ছে। সেই প্রেক্ষাপটে আগামী ৭ জানুয়ারির নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একবার নয়, দুইবার নয়, ছয় বার নৌকা প্রতীক আমাকে দিয়েছেন। আমি গত ৫ বারের মধ্যে ৪বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি এবং আপনাদের সহযোগিতায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করেছি। আবারো নৌকা প্রতীক নিয়ে আপনাদের মাঝে এসেছি। এবার আমি নির্বাচিত হলে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবো। কারণ, গত ১৫ বছরে দুই উপজেলার সিংহভাগ উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছি। অল্প কিছু কাজ বাকি আছে।

তিনি বলেন, যে ব্যক্তি নৌকায় বসে নৌকাকে ডুবাতে চায়, সে ভালো মানুষ নয়। কারণ, নৌকা স্বাধীনতার প্রতীক, নৌকা উন্নয়নের প্রতীক, নৌকা শান্তি-শৃঙ্খলার প্রতীক। সুতরাং নৌকায় থেকে কোন ভালো মানুষ নৌকার বিরুদ্ধে যেতে পারেনা।

মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম বলেন, যেহেতু উন্নয়ন করার মতো আর কোন কাজ বাকি থাকবে না। তাই, আগামিতে বৃদ্ধ বাবা-মা ও তরুণদের জন্য কাজ করবো। এর মধ্যে তরুণ-যুবকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা, বাবা-মা যাতে দুবেলা পেট ভরে খাবার খেতে পারে এবং চিকিৎসার জন্য কেউ যেন জায়গা-জমি বিক্রি করতে না হয়। সেজন্য আমি সংসদে উপস্থাপন করবো এবং প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সে দাবি আদায়ের জোর চেষ্টা করবো।

২৪ ডিসেম্বর রবিবার দিনব্যাপী শাহরাস্তি উপজেলার সুচিপাড়া উত্তর ও দক্ষিণ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে পথসভায় তিনি এসব কথা বলেছেন।
রবিবার দিনব্যাপী তিনি সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের চেড়িয়ারা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ, কেশরাঙ্গা, ভড়ুয়া, সূচীপাড়া বাজার, সূচীপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের রাগৈ, নরিংপুর, ফেরুয়া বাজার এলাকায় পথসভা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তফা কামাল মজুমদার, সুচিপাড়া ডিগ্রী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া, সুচিপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, ছাত্রলীগ নেতা ইমরান মনির প্রমূখ।

Facebook Comments Box
Tag :

মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের নির্দেশে উয়ারুকে থামবে আইদি পরিবহন

নৌকার সমর্থনে শাহরাস্তিতে দিনব্যাপী পথসভা

Update Time : ০৭:১০:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২৩

আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করার ক্ষমতা কারোই নেই

…. মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম

মহান মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর কমান্ডার, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, চাঁদপুর-৫ (শাহরাস্তি-হাজীগঞ্জ) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম বলেছেন, বাংলাদেশ একটা গভীর সমস্যার সম্মুখীন। একটা আন্তর্জাতিক চক্রান্ত চলছে, আওয়ামী লীগকে কিভাবে নাস্তানাবুদ করা যায়। আমি ক্ষমতাচ্যুত বলবো না, আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করার ক্ষমতা কারোই নেই। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণের দল। এদেশের আপামর জনতা আওয়ামী লীগের সঙ্গে ছিল আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। কিন্তু নানা ধরনের চক্রান্ত চলছে আমাদের নানাভাবে চাপে ফেলা হচ্ছে। সেই প্রেক্ষাপটে আগামী ৭ জানুয়ারির নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একবার নয়, দুইবার নয়, ছয় বার নৌকা প্রতীক আমাকে দিয়েছেন। আমি গত ৫ বারের মধ্যে ৪বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি এবং আপনাদের সহযোগিতায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করেছি। আবারো নৌকা প্রতীক নিয়ে আপনাদের মাঝে এসেছি। এবার আমি নির্বাচিত হলে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবো। কারণ, গত ১৫ বছরে দুই উপজেলার সিংহভাগ উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছি। অল্প কিছু কাজ বাকি আছে।

তিনি বলেন, যে ব্যক্তি নৌকায় বসে নৌকাকে ডুবাতে চায়, সে ভালো মানুষ নয়। কারণ, নৌকা স্বাধীনতার প্রতীক, নৌকা উন্নয়নের প্রতীক, নৌকা শান্তি-শৃঙ্খলার প্রতীক। সুতরাং নৌকায় থেকে কোন ভালো মানুষ নৌকার বিরুদ্ধে যেতে পারেনা।

মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম বলেন, যেহেতু উন্নয়ন করার মতো আর কোন কাজ বাকি থাকবে না। তাই, আগামিতে বৃদ্ধ বাবা-মা ও তরুণদের জন্য কাজ করবো। এর মধ্যে তরুণ-যুবকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা, বাবা-মা যাতে দুবেলা পেট ভরে খাবার খেতে পারে এবং চিকিৎসার জন্য কেউ যেন জায়গা-জমি বিক্রি করতে না হয়। সেজন্য আমি সংসদে উপস্থাপন করবো এবং প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সে দাবি আদায়ের জোর চেষ্টা করবো।

২৪ ডিসেম্বর রবিবার দিনব্যাপী শাহরাস্তি উপজেলার সুচিপাড়া উত্তর ও দক্ষিণ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে পথসভায় তিনি এসব কথা বলেছেন।
রবিবার দিনব্যাপী তিনি সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের চেড়িয়ারা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ, কেশরাঙ্গা, ভড়ুয়া, সূচীপাড়া বাজার, সূচীপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের রাগৈ, নরিংপুর, ফেরুয়া বাজার এলাকায় পথসভা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তফা কামাল মজুমদার, সুচিপাড়া ডিগ্রী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া, সুচিপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, ছাত্রলীগ নেতা ইমরান মনির প্রমূখ।

Facebook Comments Box