ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম:
রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদকে ভূষিত হলেন ফরিদগঞ্জের শামছুন্নাহার এসএসসির প্রশ্ন ফাঁস: মনোহরগঞ্জে ২ শিক্ষক জেলে, প্রধান শিক্ষক পলাতক বদলে গেছে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষে শ্রীপুরে র‍্যালি ও আলোচনা সভা শাহরাস্তি রেল স্টেশন বাজার কমিটি নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে মো.সাইফুল ইসলাম সকলের দোয়াপ্রার্থী বিডি হিউম্যান অর্গানাইজেশন এর আইসিটি অলিম্পিয়াড বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন  শাহরাস্তিতে পিতা-মাতাকে ঘর থেকে বের করে দেয়ায় গ্রেফতার পুত্র শাহরাস্তি প্রেসক্লাবের আয়োজনে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি মাতৃভাষা দিবস পালিত নিজমেহার ভাই বন্ধু একতা ক্লাব উদ্যোগে প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত নিজমেহার ইয়াং স্টার ক্লাবের কমিটি গঠন

মধুর আমার মায়ের হাসি…… সাংবাদিক রুহুল আমিন

  • অফিস ডেস্ক
  • Update Time : ০১:২০:১৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মে ২০২৩
  • ১৬৯৭৫ Time View

পৃথিবীতে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না যিনি বা যারা মাকে ভালোবাসে না আমরা দেখি পৃথিবীর সকল মানুষ মায়ের প্রতি যে ভালোবাসা সে ভালোবাসার উদাহরণ। পৃথিবীতে এমন কোন মানুষ নেই যে বা যারা তার মাকে ভালোবাসে না। বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে প্রায় প্রতিনিয়তেই মায়ের প্রতি ভালোবাসা অথবা মায়ের প্রতি অবজ্ঞা আমরা দেখতে পাই যা আমাদের মানসপটে আলোড়িত করে। পৃথিবীর যে কোন প্রান্তে মা’য়ের প্রতি ভালোবাসা বা অবজ্ঞার এমন কোন ঘটনা ঘটলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে তা মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে পুরো পৃথিবীতে। আজ সকালে দৈনিক পত্রিকার খবর পড়তে গিয়ে দেখি মা দিবস সম্পর্কে কেউ কেউ লিখেছেন। আমার কাছে মা দিবস টি বিশেষ হিসেবে গণ্য নয়। কারণ মা দিবস বছরের ৩৬৫ দিনই সন্তানের কাছে মা দিবস। আজ দীর্ঘকাল পর আমার প্রয়াত মায়ের কথা কেন যেন খুব করে মনে পড়ে। ২০১৮ সালের জুলাই মাসের ৭ তারিখ শুক্রবার সকাল ৭ টায় আমার মা চিরকালের জন্য পৃথিবী ছেড়ে চলে যান। কাকতালীয়ভাবে আমার বাবাও মায়ের মৃত্যুর ২৫ বছর পূর্বে ১৯ ৯৩ সালের ১ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল ৭ টায় ইন্তেকাল করেন। আজ দীর্ঘকাল পরে কেন যেন মা’কে খুব মনে পড়ছে। মায়ের অনেক আদর আমার শৈশব এবং যৌবনের কিছু অংশ কেটেছে। পরবর্তী সময় লেখাপড়া ও কর্মজীবনে প্রবেশ করার কারণে ঢাকা শহরে চলে যাই বাড়িতে যখনই ছুটিতে আসতাম তখন চেষ্টা করতাম মা’র পাশে বসে একসাথে শৈশবে মার সাথে করা গল্প করতে। শৈশবে,কৈশরে ও যৌবনে মা’কে কত না কষ্ট দিয়েছি আজ কিছু কিছু স্মৃতি অনেক কষ্ট দেয় সেই সব স্মৃতি মনে পড়লে মনে হয় আবার যদি মা’কে ফিরে পেতাম! আবার যদি শৈশবে ফিরে যেতে পারতাম! কথাগুলো ও স্মৃতিগুলো মনের অজান্তে মনের আয়নায় ভার্সছিল আর আমি আমার চোখ মুছছিলাম। এক সময় বুক ভিজে চোখের পানি পত্রিকার পাতা ভিজে যাচ্ছে একহাতে চোখ মুছি অন্য হাতে পত্রিকা। মনে হয় চোখ ঘোলাটে হয়ে আসছে মাকে এখন মনে করতে গিয়ে অনেক স্মৃতি ঘোলাটে মনে হচ্ছে বারবার মনে হচ্ছে আবারও যদি মা’কে কাছে পেতাম তবে পাশে বসে একান্তে কিছু সময় আগের মত কথা বলতাম, মা’কে জড়িয়ে ধরে বলতাম মাগো ওমা আমি তোমার অভাগা সন্তান তরুণ। আমাকে তুমি দোয়া করে দাও। মা আজ বড় বেশি মনে পড়ে তোমায় জড়িয়ে ধরতে ইচ্ছে করে। বলতে ইচ্ছে করে আমি তোমায় অনেক ভালোবাসি, অনেক অনেক ভালোবাসি মা। তুমি চাইলে পৃথিবীর সকল কিছু তোমার পায়ের কাছে হাজির করতাম। অনেক কষ্টের মধ্যে বিগত বছরগুলো আমি কাটিয়েছি হাজারবার মা তোমাকে মনে করেছি। শৈশবে মা বলতেন আমার দোয়া তোর উপর আছে, তোর কোন অমঙ্গল হবে না, সব অমঙ্গল কেটে যাবে। তুই চিন্তা করিস না আমি তো তোর সাথেই আছি। আজ এতকাল পর মা’কে খুব পেতে ইচ্ছে করে, কিন্তু মা যে আমার অনন্ত যাত্রায় সামিল হয়েছেন যেখানে একবার কেউ চলে গেলে আর আসা হয় না। এমন যদি হতো সে অনন্ত যাত্রা থেকে মা’রা ফিরে আসতে পারতেন তাহলে কেমন হতো? আমি আমার মা’য়ের৷ জন্য দোয়া করি। বন্ধুরা আমার মা-বাবার জন্য দোয়া করবেন।

আমি এতিম, আমি জানি পৃথিবীতে কেউ অনন্তকালের জন্য আসে না একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মানুষ এই পৃথিবীতে আসে। নির্দিষ্ট সময় শেষে মানুষকে অনন্ত যাত্রায় পাড়ি দিতে হয়। কিন্তু তারপরেও আমার এই মন মা’কে খোঁজে, আমি মা’কে পেতে চাই! মাগো ও-মা তুমি যেখানেই থাকো তুমি একবার তোমার তরুণকে দেখতে এসো ওমা মাগো আমি অনেক অনেক মনের কষ্টে আছি মা!!

Facebook Comments Box
Tag :
About Author Information

RAFIU HASAN

Popular Post

রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদকে ভূষিত হলেন ফরিদগঞ্জের শামছুন্নাহার

মধুর আমার মায়ের হাসি…… সাংবাদিক রুহুল আমিন

Update Time : ০১:২০:১৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ মে ২০২৩

পৃথিবীতে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না যিনি বা যারা মাকে ভালোবাসে না আমরা দেখি পৃথিবীর সকল মানুষ মায়ের প্রতি যে ভালোবাসা সে ভালোবাসার উদাহরণ। পৃথিবীতে এমন কোন মানুষ নেই যে বা যারা তার মাকে ভালোবাসে না। বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে প্রায় প্রতিনিয়তেই মায়ের প্রতি ভালোবাসা অথবা মায়ের প্রতি অবজ্ঞা আমরা দেখতে পাই যা আমাদের মানসপটে আলোড়িত করে। পৃথিবীর যে কোন প্রান্তে মা’য়ের প্রতি ভালোবাসা বা অবজ্ঞার এমন কোন ঘটনা ঘটলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে তা মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে পুরো পৃথিবীতে। আজ সকালে দৈনিক পত্রিকার খবর পড়তে গিয়ে দেখি মা দিবস সম্পর্কে কেউ কেউ লিখেছেন। আমার কাছে মা দিবস টি বিশেষ হিসেবে গণ্য নয়। কারণ মা দিবস বছরের ৩৬৫ দিনই সন্তানের কাছে মা দিবস। আজ দীর্ঘকাল পর আমার প্রয়াত মায়ের কথা কেন যেন খুব করে মনে পড়ে। ২০১৮ সালের জুলাই মাসের ৭ তারিখ শুক্রবার সকাল ৭ টায় আমার মা চিরকালের জন্য পৃথিবী ছেড়ে চলে যান। কাকতালীয়ভাবে আমার বাবাও মায়ের মৃত্যুর ২৫ বছর পূর্বে ১৯ ৯৩ সালের ১ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল ৭ টায় ইন্তেকাল করেন। আজ দীর্ঘকাল পরে কেন যেন মা’কে খুব মনে পড়ছে। মায়ের অনেক আদর আমার শৈশব এবং যৌবনের কিছু অংশ কেটেছে। পরবর্তী সময় লেখাপড়া ও কর্মজীবনে প্রবেশ করার কারণে ঢাকা শহরে চলে যাই বাড়িতে যখনই ছুটিতে আসতাম তখন চেষ্টা করতাম মা’র পাশে বসে একসাথে শৈশবে মার সাথে করা গল্প করতে। শৈশবে,কৈশরে ও যৌবনে মা’কে কত না কষ্ট দিয়েছি আজ কিছু কিছু স্মৃতি অনেক কষ্ট দেয় সেই সব স্মৃতি মনে পড়লে মনে হয় আবার যদি মা’কে ফিরে পেতাম! আবার যদি শৈশবে ফিরে যেতে পারতাম! কথাগুলো ও স্মৃতিগুলো মনের অজান্তে মনের আয়নায় ভার্সছিল আর আমি আমার চোখ মুছছিলাম। এক সময় বুক ভিজে চোখের পানি পত্রিকার পাতা ভিজে যাচ্ছে একহাতে চোখ মুছি অন্য হাতে পত্রিকা। মনে হয় চোখ ঘোলাটে হয়ে আসছে মাকে এখন মনে করতে গিয়ে অনেক স্মৃতি ঘোলাটে মনে হচ্ছে বারবার মনে হচ্ছে আবারও যদি মা’কে কাছে পেতাম তবে পাশে বসে একান্তে কিছু সময় আগের মত কথা বলতাম, মা’কে জড়িয়ে ধরে বলতাম মাগো ওমা আমি তোমার অভাগা সন্তান তরুণ। আমাকে তুমি দোয়া করে দাও। মা আজ বড় বেশি মনে পড়ে তোমায় জড়িয়ে ধরতে ইচ্ছে করে। বলতে ইচ্ছে করে আমি তোমায় অনেক ভালোবাসি, অনেক অনেক ভালোবাসি মা। তুমি চাইলে পৃথিবীর সকল কিছু তোমার পায়ের কাছে হাজির করতাম। অনেক কষ্টের মধ্যে বিগত বছরগুলো আমি কাটিয়েছি হাজারবার মা তোমাকে মনে করেছি। শৈশবে মা বলতেন আমার দোয়া তোর উপর আছে, তোর কোন অমঙ্গল হবে না, সব অমঙ্গল কেটে যাবে। তুই চিন্তা করিস না আমি তো তোর সাথেই আছি। আজ এতকাল পর মা’কে খুব পেতে ইচ্ছে করে, কিন্তু মা যে আমার অনন্ত যাত্রায় সামিল হয়েছেন যেখানে একবার কেউ চলে গেলে আর আসা হয় না। এমন যদি হতো সে অনন্ত যাত্রা থেকে মা’রা ফিরে আসতে পারতেন তাহলে কেমন হতো? আমি আমার মা’য়ের৷ জন্য দোয়া করি। বন্ধুরা আমার মা-বাবার জন্য দোয়া করবেন।

আমি এতিম, আমি জানি পৃথিবীতে কেউ অনন্তকালের জন্য আসে না একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মানুষ এই পৃথিবীতে আসে। নির্দিষ্ট সময় শেষে মানুষকে অনন্ত যাত্রায় পাড়ি দিতে হয়। কিন্তু তারপরেও আমার এই মন মা’কে খোঁজে, আমি মা’কে পেতে চাই! মাগো ও-মা তুমি যেখানেই থাকো তুমি একবার তোমার তরুণকে দেখতে এসো ওমা মাগো আমি অনেক অনেক মনের কষ্টে আছি মা!!

Facebook Comments Box